আগৈলঝাড়ায় শহীদ মিনার ভাংচুরে স্থানীয়দের ক্ষোভ, পুলিশের ঘটনাস্থল পরিদর্শন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
দক্ষিণ বাংলা শনিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় ইমামের নির্দেশে শহীদ মিনার ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। এঘটনায় এলাকায় সাধারণ জনগনের মাঝে চরম ক্ষোভ ও অসন্তোষ ছড়িয়ে পরেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। স্থানীয় ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রাজিহার ইউনিয়নের পূর্ব রাংতা গ্রামে শুক্রবার পূর্ব রাংতা জামে মসজিদের পেশ ইমাম আবু ইউসুফ অর্ধশতাধিক মুসুল্লীর উপস্থিতিতে জুম্মার খুৎবায় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো যাবে না বলে আলোচনা করেন। তিনি তার অধীনে পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের দিয়ে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ মিনার ভেঙ্গে ফেলতে নির্দেশ প্রদান করলে শিশুরা বাধ্য হয়ে শহীদ মিনার ভেঙ্গে দেয়। হুজুরের নির্দেশে শহীদ মিনার ভাঙ্গার ঘটনা শনিবার সকালে ছড়িয়ে পরলে মসজিদ কমিটির জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই দিন নামাজ শেষে মসদিজের পার্শ্ববর্তী মহব্বত আলীর বাড়ির সামনে রাস্তার পাশে স্থানীয় শিশুদের অস্থায়ী নির্মিত শহীদ মিনার ভেঙ্গে ফেলার পরে স্থানীয়রাসহ এলাকার লোকজন চরম ক্ষোভে ফেটে পরেন। আবু ইউসুফ পটুয়াখালী জেলার রাঙ্গাবালী উপজেলার রাঙ্গাবালী গ্রামের আক্কাস চৌধুরীর ছেলে। তিনি গত দুই মাস আগে উল্লেখিত মসজিদে ইমাম হিসেবে দ্বায়িত্ব পালনের পাশাপাশি চাঁদশী মাদ্রাসায় পড়াশুনা করছেন। মসজিদের ইমাম আবু ইউসুফ সাংবাদিকদের বলেন, স্থানীয় মুরুব্বী হাজি মোঃ হাতেম আলী তাকে শহীদ মিনারে ফুল দেয়া ফেরানোর জন্য বললে তিনি শহীদ মিনারে ফুল দেয়া বেদ-আত বলে শুক্রবার খুৎবায় ফতোয়া দিয়েছিলেন। থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ গোলাম ছরোয়ার জানান, তিনি শহীদ মিনার ভাঙ্গার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসআই মাহাবুবকে পাঠিয়েছেন। ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষ ব্যবস্থা নেবেন বলেও জানান তিনি।


আরো নিউজ
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: JPHOSTBD