দক্ষিণ বাংলা - দক্ষিনের জনপদের খবর দক্ষিণ বাংলা - দক্ষিনের জনপদের খবর আমার বাবা আর ‘বাব্বা-বাব্বা’ বলে ডাকবে না - দক্ষিণ বাংলা আমার বাবা আর ‘বাব্বা-বাব্বা’ বলে ডাকবে না - দক্ষিণ বাংলা
শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:০৪ পূর্বাহ্ন

আমার বাবা আর ‘বাব্বা-বাব্বা’ বলে ডাকবে না

নিউজ ডেস্ক
  • প্রকাশিতঃ সোমবার, ২৮ জুন, ২০২১
  • ৮৮ জন নিউজটি পড়েছেন
আমার বাবা আর ‘বাব্বা-বাব্বা’ বলে ডাকবে না

‘আমার বাবা আর বা-ব্বা, বা-ব্বা বলে ডাকবে না’ -কান্নায় ভেঙে পড়ছিলেন আর চিৎকার করছিলেন মগবাজারে বিস্ফোরণের ঘটনায় ৯ মাসের শিশু সন্তান হারানো বাবা সুজন। বিস্ফোরণে ঘটনায় তার ৯ মাসের শিশু সুবহানা ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। আর স্ত্রী জান্নাতকে (২৩) মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে এলে তিনিও মারা যান। ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগের সামনে দিশেহারা সুজন।

কান্না জড়িত কণ্ঠে সুজন বলেন, আমার সব শেষ হয়ে গেল, কি নিয়ে আমি বাচবো বলতে পারেন। আমার বাঁচার মত তো কিছু রইল না। আমি কি অন্যায় করেছি, এভাবে শাস্তি পেতে হবে। আমার ছোট শিশুর কি দোষ ছিল। কীভাবে কি হলো কিছুই বুঝতে পারলাম না। আমার তো বাঁচার মতো কিছু রইল না। সকালে বাসা থেকে বের হওয়ার সময় আমার সোনা মনি আমার সঙ্গে খেলা করেছে। সবে মাত্র কথা শিখতে শুরু করছে। আমার বাবা আমাকে শবে মাত্র বা’ব্বা, বা-ব্বা বলে ডাকতে শুরু করেছে। আর কখনও আমাকে বাবা বলে ডাকতে পারবে না।

সুজন আরও বলেন, আমি রমনা ফার্মেসিতে চাকরি করি। আমার ছোট শ্যালক রাব্বি আমাদের বাসায় বেড়াতে এসেছে। সন্ধ্যায় মগবাজার শর্মা হাউজে গিয়েছে তারা। আমার স্ত্রী জান্নাতের আত্মীয়রা সেখানে চাকরি করে, তাদের সঙ্গে দেখা করতে গেছিলেন তারা।হঠাৎ বিস্ফোরণে আমার জীবনের সব কিছু ওলট-পালট করে দিয়েছে। আমার বাচ্চা ও স্ত্রী মারা গেছে শ্যালক রাব্বি কোথায় তাও জানি না। কি আর রইল আমার বেঁচে থাকার সম্বল।

প্রতিবেশী রফিকুল ইসলাম বলেন, সুজন আমাদের প্রতিবেশী পাশাপাশি বাসায় আমরা ভাড়া থাকি। বড় মগবাজারের ৪৮৭ নম্বর নিচতলায় স্ত্রী ও ৯ মাসের শিশু সন্তান সুবহানাকে নিয়ে ভাড়া থাকে। একই সঙ্গে স্ত্রী ও সন্তান এভাবে চলে যাবে, এই ভয়াবহ দৃশ্য মেনে নেওয়া যায় না।

রোববার (২৭ জুন) সন্ধ্যায় মগবাজার এলাকায় ঘটে যাওয়া ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় সোমবার (২৮ জুন) সকাল পর্যন্ত ৭ জনের মৃতু্য হয়েছে। এছাড়া বেশ কয়েকজন ফঅমেকসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

দগ্ধ হওয়াদের মধ্যে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের চিকিৎসাধীন আছেন যারা-রাসেল (২৪), জাকির হোসেন (৪০), স্বপন (২২), নয়ন (৩২), মোতালেব (৪০), আবুল কালাম (৩৫), মো. পইমল হোসেন (৪০) মোস্তাফিজ (৪৫), নবী (২৮),আজাদ (৩৫) ও ইমরান। এদের মধ্যে স্বপন নামে একজন মারা গেছেন। মৃত অবস্থায় দুজনকে বার্ন ইনস্টিটিউটে নিয়ে আসা হয়েছে, তাদের দুজনের নাম-পরিচয় এখনও পাওয়া যায়নি। বেশ কয়েকজন চিকিৎসা নিয়ে বাসায় চলে গেছেন।

সামন্ত লাল সেন সাংবাদিকদের বলেন, মগবাজারের দুর্ঘটনায় মোট ১৭ জনকে আমাদের এখানে আনা হয়েছে। তাদের মধ্যে দুজনকে আমরা মৃত অবস্থায় পাই। তিনজন ছিলেন দগ্ধ। এর মধ্যে দুজনকে আইসিইউতে, একজনকে এসডিইউতে রাখা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, দগ্ধ তিনজনের অবস্থা খুবই খারাপ। নাইনটি পারসেন্ট বার্ন। তাদের সম্পর্কে এখন কিছু বলা যাচ্ছে না। বাকি আহতরা যারা আছেন, তাদের কারও পা কাটা গেছে, কারও পা ভেঙে গেছে।

দক্ষিণ বাংলা ডটকম এর জন্য সারাদেশে সংবাদ দাতা নিয়োগ চলছে
যোগাযোগঃ- ০১৭১১১০২৪৭২, news@dokhinbangla.com




এই ক্যাটাগরির আর নিউজ




Salat Times

    Dhaka, Bangladesh
    শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ৪:৩০
    সূর্যোদয়ভোর ৫:৪৬
    যোহরদুপুর ১১:৫৩
    আছরবিকাল ৩:১৯
    মাগরিবসন্ধ্যা ৫:৫৯
    এশা রাত ৭:১৫




© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দক্ষিণ বাংলা:-2018-2021
সারাদেশের সংবাদ দাতা নিয়োগ চলছে ০১৭১১১০২৪৭২
themesba-lates1749691102
বাংলা English