দক্ষিণ বাংলা - দক্ষিনের জনপদের খবর দক্ষিণ বাংলা - দক্ষিনের জনপদের খবর কুড়িগ্রামে শৈত্যপ্রবাহে জনজীবন বিপর্যস্ত - দক্ষিণ বাংলা কুড়িগ্রামে শৈত্যপ্রবাহে জনজীবন বিপর্যস্ত - দক্ষিণ বাংলা
রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১০:৩৬ অপরাহ্ন

কুড়িগ্রামে শৈত্যপ্রবাহে জনজীবন বিপর্যস্ত

ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিতঃ শুক্রবার, ২৯ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৪৬ জন নিউজটি পড়েছেন
কুড়িগ্রামে শৈত্যপ্রবাহে জনজীবন বিপর্যস্ত

কুড়িগ্রামে চলমান রয়েছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ। জেলায় আজকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ফেব্রুয়ারি মাসে আরও দুটি শৈত্যপ্রবাহের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে রাজারহাট আবহাওয়া অফিস।

এতে ঘন কুয়াশা, ঠান্ডা বাতাসের কারণে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে কুড়িগ্রামের জন-জীবন। দিনের বেলা সামান্য কিছু সময় সূর্যের দেখা মিললেও অধিকাংশ সময়ই মিলছে না সূর্যের দেখা। দিনের বেলায় হেডলাইট জ্বালিয়ে চলছে যানবাহন। কনকনে ঠান্ডায় নাকাল খেটে খাওয়া ও শ্রমজীবী মানুষরা।

তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছে জেলার পাঁচ শতাধিক চর ও দ্বীপ চরের মানুষসহ নিম্নবিত্ত ও ছিন্নমূল মানুষজন। প্রয়োজন ছাড়া লোকজন বাড়ির বাইরে বের হচ্ছে না। রাস্তাঘাট ও বাজারে কমেছে লোকজনের আনাগোনা।

খড়খুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন অনেকেই। এ কনকনে ঠান্ডায় গরম কাপড়ের অভাবে দুর্ভোগ বেড়েছে হতদরিদ্র পারিবারের শিশু ও বৃদ্ধদের।

অন্যদিকে টানা শীতে জেলার হাতপাতালগুলোতে বেড়েছে ঠান্ডাজনিত রোগীর সংখ্যা। বিশেষ করে শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছে ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্টসহ নানা রোগে।

যাত্রাপুর এলাকার ঘোড়ার গাড়িচালক আয়নাল মিয়া বলেন, ‘অতিরিক্ত ঠান্ডায় ঘোড়াগুলো দৌড়াতে পারছে না। আমারও প্রচুর ঠান্ডা লাগছে। কিন্তু কি করবো? মালামাল পরিবহন না করলে না খেয়ে থাকতে হবে’।

কুড়িগ্রাম শহরের ভ্যানগাড়িচালক জব্বার আলী জানান, কয়েক দিন থেকে প্রচুর ঠান্ডা যাচ্ছে। শীতের কাপড় পরেছি। তবুও ভ্যানগাড়ি চালালে সেই কাপড় ভেদ করে ঠান্ডা বাতাস লাগছে। এতে খুবই কষ্ট হচ্ছে।
কুড়িগ্রামে শৈত্যপ্রবাহে জনজীবন বিপর্যস্ত

ভোগডাঙ্গা এলাকার খড়ি বিক্রেতা দুলাল মিয়া বলেন, আমি গরীব মানুষ। একদিন খড়ি বিক্রি করতে না পারলে পেটে ভাত যায় না। শীতবস্ত্র কেনারও সামর্থ্য নেই। তাই হালকা কাপড়েই বেরিয়ে পড়েছি খড়ি বিক্রি করতে। কিন্তু খুবই ঠান্ডা লাগছে।

রাজারহাট আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র সরকার জানান, শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) কুড়িগ্রামের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এতে জেলা জুড়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ চলমান রয়েছে। এছাড়াও ফেব্রুয়ারি মাসে আরও দুটি শৈত্যপ্রবাহের সম্ভাবনা রয়েছে।




নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আর নিউজ




Salat Times

    Dhaka, Bangladesh
    রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ৫:০৬
    সূর্যোদয়ভোর ৬:২১
    যোহরদুপুর ১২:১১
    আছরবিকাল ৩:৩১
    মাগরিবসন্ধ্যা ৬:০১
    এশা রাত ৭:১৬




© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত 2018-2020
সারাদেশের সংবাদ দাতা নিয়োগ চলছে ০১৭১১১০২৪৭২
themesba-lates1749691102
বাংলা English