গোপালগঞ্জে মানবাধিকার কর্মীকে চেয়ারম্যানের মারধর/ থানায় অভিযোগ

রাতুল হাসান, গোপালগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ
দক্ষিণ বাংলা রবিবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২২

গোপালগঞ্জে বিল্লাল হোসেন নামের এক মানবাধিকার কর্মীকে মারধর করে প্রাণ নাশের হুমকি দিয়েছে মনির গাজী নামের এক ইউপি চেয়ারম্যান। মনির গাজী গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ৭নং উরফি ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও ডুমদিয়া গ্রামের মৃত কুটিমিয়া গাজীর ছেলে।
এবিষয়ে মারধর ও প্রাণনাশের হুমকির শিকার হওয়া ওই মানবাধিকার কর্মী চেয়ারম্যান মনির গাজীকে আসামি করে গোপালগঞ্জ সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। লিখিত অভিযোগের বর্ণনা ও ঘটনা স্থলে উপস্থিত ব্যক্তিদের থেকে জানা যায়, বিল্লাল হোসেন একজন মানবাধিকার কর্মী ও শারীরিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তি। সে দীর্ঘদিন ধরে উরফি ইউনিয়নের বিভিন্ন অসহায়, দরিদ্র ও অত্যাচারীত মানুষদের পক্ষে কথা বলে আসছে। গত ২/৩ মাস পূর্বে চেয়ারম্যান মনির গাজী তার লাঠিয়াল বাহিনী দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের দক্ষিণ পার্শের সংখ্যালঘু পরিবারের বসতবাড়ির ফাঁকা জায়গায় জোর করে দোকান নির্মাণ করে দখল করার চেষ্টা করে। এরপর সংখ্যালঘু পরিবারের সদস্য মিলন কান্তি দাস নিরুপায় হয়ে গোপালগঞ্জ আদালতে মামলা করে। ২৩ অক্টোবর (রবিবার) বিকালে ওই মামলার তদন্তে আসে ভেড়ার হাট তৌশিলের নায়েব মোঃ জাহিদুল ইসলাম। এসময় বাদী মিলন কান্তি দাস তার পরিবারের অন্যান্য সদস্য, মানবাধিকার কর্মী বিল্লাল হোসেন ও চেয়ারম্যান মনির গাজীসহ তার লাঠিয়াল বাহিনী উপস্থিত হয়। তদন্ত চলাকালীন সময়ে চেয়ারম্যান বাদীকে হুমকি ধামকি দিয়ে চুপ থাকতে বললে মানবাধিকার কর্মী প্রতিবাদ করে এবং তদন্তকারী কর্মকর্তার কাজে সঠিক তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করে। তাৎক্ষনিক চেয়ারম্যান মনির গাজী ক্ষিপ্ত হয়ে বিল্লাল হোসেন কে মাটিতে ফেলে দিয়ে কিল, ঘুষি ও লাথি মারে এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে প্রাণনাশের হুমকি দেয়।
তদন্তকারী কর্মকর্তা ভেড়ার হাট তৌশিলের নায়েব জাহিদুল ইসলাম বলেন, হট্টগোল হওয়ার আশঙ্কা বুঝতে পেরে আমরা অন্য মামলার তদন্তে চলে যাই, পরবর্তিতে চেয়ারম্যান মানবাধিকার কর্মীকে মারধর করেছে কিনা জানিনা।
এসকল অভিযোগ অস্বীকার করে চেয়ারম্যান মনির গাজী বলেন, এ মামলায় বিল্লাল হোসেন কোন পক্ষ নয়, তাকে শুধু বাড়তি কথা বলতে নিষেধ করেছি।
গোপালগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) মোঃ নাসির উদ্দিন বলেন, চেয়ারম্যান কর্তৃক মানবাধিকার কর্মীকে মারধরের অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরো নিউজ
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: JPHOSTBD