নভেম্বরে গরুর মাংস রপ্তানিতে ব্রাজিলের রেকর্ড

দক্ষিণ বাংলা
দক্ষিণ বাংলা বুধবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২০
নভেম্বরে গরুর মাংস রপ্তানিতে ব্রাজিলের রেকর্ড

করোনাভাইরাস মহামারির ধাক্কা সামলে বেশ ভালোভাবেই ঘুরে দাঁড়াচ্ছে ব্রাজিলের অর্থনীতি। কিছুদিন আগেই জানা গেছে, বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে তাদের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৮ শতাংশের কাছাকাছি। এবার এলো আরও এক সুখবর। নভেম্বরে গরুর মাংস রপ্তানিতে নতুন রেকর্ড গড়েছে দেশটি।

এমনিতেই বিশ্বের প্রধান গরুর মাংস উৎপাদক ও রপ্তানিকারক দেশ ব্রাজিল। গত নভেম্বরে তাদের গরুর মাংস রপ্তানির পরিমাণ ছিল রেকর্ড ১ লাখ ৯৭ হাজার ৮৫২ টন। অর্থের হিসাবে এর পরিমাণ দাঁড়িয়েছে প্রায় ৮৪৪ দশমিক ৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

গত অক্টোবরের তুলনায় নভেম্বরে ব্রাজিলের গরুর মাংস রপ্তানি বেড়েছে অন্তত ১০ শতাংশ। আর ২০১৯ সালের নভেম্বরের তুলনায় বেশি হয়েছে প্রায় তিন মিলিয়ন ডলার।

গত বছরের নভেম্বরে ব্রাজিল গরুর মাংস রপ্তানি করেছিল মোট ১ লাখ ৮০ হাজার ২১৪ টন বা ৮৪১ দশমিক ৯ মিলিয়ন ডলার সমমানের।

এবছর ব্রাজিলিয়ান গরুর মাংসের সবচেয়ে বড় ক্রেতা হচ্ছে চীন। গত জানুয়ারি থেকে নভেম্বর পর্যন্ত ব্রাজিলের প্রায় ৫৭ দশমিক ৯ শতাংশ গরুর মাংস রপ্তানিই হয়েছে এশিয়ার দেশটিতে। ২০১৯ সালের একই সময়ে এর পরিমাণ ছিল ৪৩ দশমিক ২ শতাংশ।

এছাড়া মিসর, চিলি এবং রাশিয়াও ব্রাজিলিয়ান গরুর মাংসের অন্যতম প্রধান ক্রেতা।

ব্রাজিলিয়ান সংস্থা আব্রাফ্রিগোর ধারণা, ২০১৯ সালের তুলনায় ২০২০ সালে ব্রাজিলের মোট গরুর মাংস রপ্তানি ১০ শতাংশ বাড়তে পারে, আর এ থেকে আয় বাড়বে অন্তত ১৫ শতাংশ।

এদিকে, চলতি সপ্তাহে ব্রাজিলের রাষ্ট্রপরিচালিত ভূগোল ও পরিসংখ্যান ইনস্টিটিউট (আইবিজিই) জানিয়েছে, ২০২০ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকের তুলনায় তৃতীয় প্রান্তিকে দেশটির অর্থনীতির আকার বেড়েছে ৭ দশমিক ৭ শতাংশ, যা ১৯৯৬ সালের পর থেকে সর্বোচ্চ ত্রৈমাসিক প্রবৃদ্ধি।

২০১৯ সালের শেষ তিন মাসের তুলনায় চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে ব্রাজিলের অর্থনীতি সংকুচিত হয়েছিল ১ দশমিক ৫ শতাংশ। দ্বিতীয় প্রান্তিকে রীতিমতো ধস নামে দেশটির অর্থনীতিতে। এপ্রিল থেকে জুনে তাদের অর্থনৈতিক সংকোচন হয় রেকর্ড ৯ দশমিক ৬ শতাংশ। তবে তৃতীয় প্রান্তিকে আর নেতিবাচক নয়, ইতিবাচক প্রবৃদ্ধিই হয়েছে রেকর্ড পরিমাণে। অবশ্য এবছরের জুলাই থেকে সেপ্টেম্বরে ৮ দশমিক ৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধির আশা করেছিল ব্রাজিলের অর্থ মন্ত্রণালয়।


আরো নিউজ