সর্বশেষ খবর
বাংলাদেশ, রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩

বঙ্গোপসাগরে হারিয়ে যাওয়া ট্রলারসহ ১৯ জেলেকে উদ্ধার করলো কোস্টগার্ড

মনির হোসেন,মোংলা
দক্ষিণ বাংলা বৃহস্পতিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০২০
বঙ্গোপসাগরে হারিয়ে যাওয়া ট্রলারসহ ১৯ জেলেকে উদ্ধার করলো কোস্টগার্ড

বঙ্গোপসাগরে হারিয়ে যাওয়া ফিশিং ট্রলারসহ ১৯ জেলেকে উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের টহল জাহাজ বিসিজিএস সোনার বাংলা। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে উদ্ধারকৃত জেলে ও ট্রলার মোংলায় আনা হয়।

‘বিসিজিএস সোনার বাংলা’ জাহাজের অধিনায়ক কমান্ডার নিজাম উদ্দিন সরদার জানান, গত ১৫ নভেম্বর চট্টগ্রাম থেকে ‘এফভি রানা’ নামের একটি ফিসিং ট্রলারসহ ১৯ জন জেলে গভীর সমুদ্রে মাছ ধরার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। ২৩ নভেম্বর থেকে যান্ত্রিক ত্রুটির কারনে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ট্রলারটি ভাসতে ভাসতে ভারতীয় জলসীমায় পৌঁছে যায়। প্রায় ১৫ দিন যাবৎ সমুদ্রের মাঝে ভেসে থাকার পর ভারতীয় কোস্টগার্ডের জাহাজ আইসিজিএস ভরদ ট্রলারটিকে দেখতে পায়। গত ৮ ডিসেম্বর ভারতীয় কোস্টগার্ডের জাহাজ ট্রলারটিকে উদ্ধার করে বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের সাথে যোগাযোগ করে ৯ ডিসেম্বর ভোরে বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের জাহাজ বিসিজিএস সোনার বাংলা’র কাছে হস্তান্তর করে। কোস্টগার্ডের জাহাজ সোনার বাংলা ১৯ জন জেলেসহ ট্রলারটিকে নিয়ে বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) দুপুরে কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের অধীনস্থ বিসিজি বেইজ মোংলায় নিয়ে আসে।
উদ্ধারকৃত জেলেরা হলেন- ইউসুফ (৩৫),আবু সুফিয়ান (৩৬), রিয়াজ (২৫),শাহ আলম (৪০), সুমন (১৭), জাহাঙ্গীর আলম (৫০), সমশের আলম (৫০), শাখির (২০), তাদলিস ইসলাম (৪০), সোহেল (২৩), ইসমাইল (৬৫), আব্দুল মালেক (৭০), হাসান (১৮), শফিক (৩০), মোহাম্মদ জাকির (২৬), মোহাম্মদ জাফর (২৪), মাসুদ রানা (৩৫) ও আনোয়ার খান (৩৭)। উদ্ধারকৃত জেলেদের বাড়ি কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন এলাকায়।
উদ্ধারকৃত জেলেদের মোংলায় আনার পর ফিশিং ট্রলার ও জেলেদের ট্রলারের মালিকের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

কোস্টগার্ড কর্মকর্তা কমান্ডার নিজাম উদ্দিন সরদার আরো জানান, এ ঘটনায় ভারত এবং বাংলাদেশের পাস্পরিক সম্পর্ক শুধু জোরদারই করবে না বরং ভবিষ্যতে দুই দেশের কোস্টগার্ডের পারস্পরিক সহযোগিতাও অনেকাংশে বৃদ্ধি পাবে। বাংলাদেশ কোস্টগার্ড প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই উপকূলীয় এলাকার অসহায় দুস্থ জেলেসহ সকলের সাহায্যে সহযোগিতা, চিকিৎসা, দূর্যোগ মোকাবেলাসহ সকল সার্বিক নিরাপত্তায় অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে এবং এ ধরনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।


আরো নিউজ