দক্ষিণ বাংলা - দক্ষিনের জনপদের খবর দক্ষিণ বাংলা - দক্ষিনের জনপদের খবর মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী জোটে রোহিঙ্গাদের আমন্ত্রণ - দক্ষিণ বাংলা মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী জোটে রোহিঙ্গাদের আমন্ত্রণ - দক্ষিণ বাংলা
মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:২৯ অপরাহ্ন

মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী জোটে রোহিঙ্গাদের আমন্ত্রণ

নিউজ ডেস্ক
  • প্রকাশিতঃ সোমবার, ১২ জুলাই, ২০২১
  • ৬৫ জন নিউজটি পড়েছেন
মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী জোটে রোহিঙ্গাদের আমন্ত্রণ

গত ফেব্রুয়ারিতে অং সান সু চির সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। তার প্রতিবাদে দেশজুড়ে এখনেও বিক্ষোভ চলছে। সু চির রাজনৈতিক দলের সদস্যরা ইতোমধ্যে একটি জান্তাবিরোধী জোট গঠন করেছে। ‘ন্যাশনাল ইউনিটি গভর্নমেন্ট’ নামে এ জোট নির্বাসিত অবস্থায় আন্তর্জাতিক পর্যায় থেকে বিভিন্ন দেশের সরকার ও গণমাধ্যমের সহযোগিতা পেতে কাজ করে যাচ্ছে। গত মাসে জোটের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গাদেরকে জান্তাবিরোধী এ কার্যক্রমে যোগদানের আহ্বান জানানো হয়। একই সঙ্গে তারা নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া সকল রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফিরিয়ে নেওয়ার আশ্বাসও দেয়। এমনকি রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারের নাগরিকত্ব দেওয়ার বিষয়েও জোটের পক্ষ থেকে আশ্বাস দেয়া হয়।

মিয়ানমারের রাখাইন অঞ্চলে বসাবাসরত রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠীর সদস্যদের সে দেশের নাগরিকত্ব নেই। কয়েক দশক ধরে নিপীড়নের শিকার এ জনগোষ্ঠীটি রাষ্ট্রীয় পর্যায়ের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা থেকেও বঞ্চিত। ২০১৭ সালে সেনাবাহিনীর অভিযানের মুখে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশের কক্সবাজার জেলায় আশ্রয় নেয়।

তবে জান্তাবিরোধী জোটে যাওয়ার এ আমন্ত্রণকে রোহিঙ্গারা সতর্কতার সাথে দেখতে চাইছে। দেশের বাইরে বসে সমর্থন নেওয়ার জন্য বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দেওয়ার বিষয়টিকে ‘মাছ ধরার জন্য টোপ পাতার মতো’ বলে মনে করেন ওয়াই মার নামের এক রোহিঙ্গা।

২০১২ সালে রাখাইনে স্থানীয় বৌদ্ধদের সাথে সংঘর্ষের পর দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর সিত্তের নিকটবর্তী একটি অস্থায়ী ক্যাম্পে বাস করেন ওয়াই মার। তিনি বলেন, ‘আমাদেরকে বলির পাঁঠা হয়ে থাকতে হয়।’

এদিকে এমন প্রস্তাবের পরও জান্তাবিরোধী এ জোটে কোনও রোহিঙ্গা সদস্য নেই। জোটটিতে বর্তমানে ৩২ জন সদস্য রয়েছেন।

নিজেদের অবস্থার বর্ণনা দিতে গিয়ে সিত্তের ক্যাম্পে থাকা আরেক বাসিন্দা কো টুন হ্লা বলেন, ‘আমরা জানি, সবকিছুই আমরা এক রাতের মধ্যে পেয়ে যাবো না। তবে আমাদের ন্যূনতম মানবাধিকার— যেমন চলাফেরার স্বাধীনতা, নাগরিকত্ব পাওয়া, নিজের বসতিতে ফেরা ইত্যাদি নেই।’

গত ফেব্রুয়ারি মাসের সেনা অভ্যুত্থানের পর সেনা সদস্যরা ক্যাম্পের রোহিঙ্গাদের সাথে বৈঠকের উদ্যোগ নেয়। বৈঠকের বিষয়ে ক্যাম্পটির আরেকজন বাসিন্দা উইন মাউং বলেন, বৈঠকে যখনই তারা নিজেদের অধিকারের বিষয়ে জানতে চাইলেন, সেনা সদস্যরা তখন ধমকের সুরে কথা বলতে শুরু করেন। তারা আমাদেরকে বলল, তোমরা রোহিঙ্গা না, তোমরা বাংলাদেশি। সেনাসদস্যরা তখন রোহিঙ্গাদের গুলি করে মারার হুমকি দেয় বলেও দাবি করেন তিনি।

তবে যারাই রোহিঙ্গাদের অধিকারের বিষয়টি নিশ্চিত করবে তাদেরকেই সহযোগিতা করা হবে বলে জানালেন কো টুন লা। তিনি বলেন, ‘সেনাবাহিনী, অং সান সুচির এনএলডি বা অন্য কোনও রাজনৈতিক দল যে-ই আমাদের অধিকারগুলো নিশ্চিত করবে, আমরা তাদের সহযোগিতা করবো।’ ডি ডব্লিউ।

দক্ষিণ বাংলা ডটকম এর জন্য সারাদেশে সংবাদ দাতা নিয়োগ চলছে
যোগাযোগঃ- ০১৭১১১০২৪৭২, news@dokhinbangla.com




এই ক্যাটাগরির আর নিউজ




Salat Times

    Dhaka, Bangladesh
    মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ৪:৩১
    সূর্যোদয়ভোর ৫:৪৭
    যোহরদুপুর ১১:৫১
    আছরবিকাল ৩:১৮
    মাগরিবসন্ধ্যা ৫:৫৬
    এশা রাত ৭:১১




© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দক্ষিণ বাংলা:-2018-2021
সারাদেশের সংবাদ দাতা নিয়োগ চলছে ০১৭১১১০২৪৭২
themesba-lates1749691102
বাংলা English