লাল-সবুজের সাজে বিজয়ের আনন্দ

দক্ষিণ বাংলা
দক্ষিণ বাংলা বুধবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২০
লাল-সবুজের সাজে বিজয়ের আনন্দ

বিজয় মানেই আনন্দ। ডিসেম্বর বিজয়ের মাস। ১৬ ডিসেম্বর আমরা একটি স্বাধীন দেশ পেয়েছি। এ বিজয়ের আনন্দ অপরিসীম। বিজয়ের এ আনন্দকে ধারণ করি মনে-প্রাণে। আনন্দের ধারা বয়ে চলে আমাদের পোশাকে। বিজয়ের উৎসবে ভিন্নভাবে সাজে গোটা দেশ। আমাদের ফ্যাশনেও আসে পরিবর্তন।

ডিসেম্বর এলেই শুরু হয় লাল-সবুজের সাজ। জীবনযাপনে জড়িয়ে যায় আমাদের প্রিয় রঙ। জাতীয় পতাকার রঙে রঙিন হয়ে ওঠে মানবদেহ। রাজপথে, ভবনে, পার্কে, অনুষ্ঠানে প্রায় মানুষই লাল-সবুজের পোশাক পরেন। সে ধারণাকে পুঁজি করেই প্রস্তুতি নেয় দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলো।

দিবসটি সামনে রেখে দেশের বিভিন্ন ফ্যাশন হাউজ সেজে ওঠে বর্ণিল রূপে। তাদের ডিজাইনের একটি বড় অংশজুড়ে থাকে দেশাত্মবোধের চেতনা। চিত্রকল্প হিসেবে পোশাকে, শোপিসে, পটে উঠে আসে মুক্তিযুদ্ধের স্থিরচিত্রের চিত্রকর্ম, বঙ্গবন্ধুর মুখচ্ছবি ও গ্রামবাংলার চিরায়ত সৌন্দর্য।

দেশের উল্লেখযোগ্য ফ্যাশন হাউজের মধ্যে আড়ং, অঞ্জন’স, বিশ্ব রঙ, দেশী দশ, নিত্য উপহার, কে ক্র্যাফট, দর্জি বাড়ি, মেঘ, বাংলার মেলা, অন্যমেলা, নিপুণ, বিবিআনা, তারামার্কা, পঙিত, বাসন্তী, এড্রয়েট, ওজি, ইনফিনিটি, দেশাল, নন্দনকুঠির, গ্রামীণ, অক্সিজেন, নগরদোলা, ফড়িং, কাজী ক্রাফট, লাল সাদা নীল হলুদ, সমীকরণ বিজয়ের পোশাক আনে।

সেসব পোশাকে ব্যবহার করা হয় নিজস্ব উইভিংয়ে করা ডিজাইন, টাই ডাই, স্ক্রিন প্রিন্ট, ব্লক প্রিন্ট, অ্যাপলিক, এমব্রয়ডারিসহ বিভিন্ন মাধ্যম। কোনো কোনো পোশাকে উঠে আসে বাংলাদেশের মানচিত্র, জাতীয় পতাকা, মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন ছবি, লেখা, কবিতার লাইন ও জাতীয় ফুল শাপলা। উঠে আসে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস, স্লোগান, মিছিল, স্মৃতিসৌধের প্রতিকৃতি, গৌরবোজ্জ্বল মুহূর্ত, দেশাত্মবোধক গানের পঙক্তি ও বর্ণমালা।

ফ্যাশন হাউজগুলো নারীর জন্য শাড়ি, টপস, সালোয়ার-কামিজ, কুর্তি, ওড়না, ব্লাউজ পিস, শাল, মাথার ব্যান্ডানা, হাতের ব্যান্ড, ব্রেসলেট, চুড়ি ও স্কার্ফ বাজারজাত করে। পাশাপাশি পুরুষের জন্য পাঞ্জাবি, টি-শার্ট, ফতুয়া, শার্ট, রুমাল ও শিশুদের পোশাক নিয়ে হাজির হয়।

এসব পোশাকের দাম রয়েছে ক্রেতাদের নাগালের মধ্যে। তবে করোনার মধ্যে মার্কেটে যেতে না পারলেও অনলাইন বা ফেসবুক পেজের মাধ্যমে কেনার সুযোগ রয়েছে। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট বা ফেসবুক পেজে গিয়ে অর্ডার করতে পারবেন। অর্ডার নিশ্চিত হলেই নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পেয়ে যাবেন কাঙ্ক্ষিত পোশাক।

আর দেরি না করে এখনই সংগ্রহ করুন লাল-সবুজের প্রিয় পোশাক। করোনাকালে গণজমায়েত না হলেও স্বাস্থ্যবিধি মেনেই উদযাপন করতে পারেন বিজয় দিবস। নিজেকে সাজিয়ে তুলতে পারেন বিজয়ের রঙে। বিজয়ের সুবর্ণ জয়ন্তীতে দেশপ্রেমে উদ্বুব্ধ হোক প্রতিটি নাগরিক। তবে শুধু পোশাকেই নয়; মনে-প্রাণেও জাগ্রত থাকুক লাল-সবুজের ভালোবাসা।


আরো নিউজ