শিশু ধর্ষণ-হত্যা মামলায় যুবকের ফাঁসি যশোরে

দক্ষিণ বাংলা
দক্ষিণ বাংলা সোমবার, ৬ মার্চ, ২০২৩

অনলাইন ডেক্স: যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলায় শিশু ধর্ষণের দায়ে নাজমুল হক নামে এক যুবককে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। রোববার (০৫ মার্চ) জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক গোলাম কবির এ রায় দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত নাজমুল হক ওরফে বান্দাআলী বাঘারপাড়া উপজেলার দোহাকুলা ইউনিয়নের ঠাকুরকাঠি গ্রামের নওশের আলীর ছেলে।

সংশ্লিষ্ট আদালতের পিপি সেতারা খাতুন বাংলানিউজকে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। নিহত রিক্তা খানম একই গ্রামের মুক্তার হোসেনের মেয়ে। রিক্তা স্থানীয় ইসলামিক ফাউন্ডেশন পরিচালিত মক্তব ভিত্তিক শিশু শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

আদালত সূত্র জানা যায়, নাজমুল ও রিক্তা পাশাপাশি বাড়িতে থাকতেন। ২০২১ সালের ২০ নভেম্বর সকাল থেকে রিক্তাকে খুঁজে পাচ্ছিলো না তার পরিবার। বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায় পুকুরে তল্লাশি চালায় তারা। তাদের সঙ্গে এ সময় নাজমুলও খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। এর মধ্যে নাজমুলকে তার বাড়ির পাশের একটি ফাঁকা স্থানে গর্ত খুঁড়তে দেখতে পান প্রতিবেশীরা। সেখানেই রিক্তার একটি স্যান্ডেল পড়ে থাকতে দেখে তাদের সন্দেহ হয়। পরে নাজমুলকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। পরে প্রতিবেশীরা তাকে ধরে ফেলে। এক পর্যায়ে তিনি স্বীকার করেন রিক্তার মরদেহ তার নিজের ঘরের খাটের নিচে রাখা আছে। নাজমুল আরও জানান, রিক্তাকে প্রথমে ধর্ষণ করে পরে শ্বাসরোধে হত্যার পর মরদেহ গর্তে পুঁতে রাখার চেষ্টা করছিলেন। পরে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ও নাজমুলকে আটক করে।

এ ঘটনায় রিক্তার বাবা মুক্তার আলী বাদী হয়ে বাঘারপাড়া থানায় মামলা দায়ের করেন। আটকের পর আদালতে সোপর্দ করা হলে হত্যা ও ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করে জবানবন্দি দেন নাজমুল। সেই থেকেই কারাগারে আটক রয়েছেন নাজমুল। এর মধ্যে মামলাটি তদন্ত করে ২০২২ সালের ১৭ মে আদালতে চার্জশিট জমা দেন তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আওয়াল হোসেন। এ মামলায় ১৬ জনের সাক্ষী শেষে রোববার আদালত বাদী ও আসামির উপস্থিতিতে এ মামলার রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পর আদালত নাজমুলকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

মামলার বাদীসহ তার পরিবারের সদস্যরা এ রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। একই সঙ্গে দ্রুত ফাঁসি কার্যকারের দাবিও জানান তারা। আসামি পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম। আসামি পক্ষ এ রায়ে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন বলে জানিয়েছে।


আরো নিউজ
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: JPHOSTBD