সালিশে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত যুবকের মৃত্যু, ভাঙচুর-লুটপাট

ডেস্ক রিপোর্ট
দক্ষিণ বাংলা সোমবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
সালিশে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত যুবকের মৃত্যু, ভাঙচুর-লুটপাট

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পাকা গ্রামে সালিশে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত যুবক ইমরান হোসেনের (২৬) মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর একটি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। তিনি ওই এলাকার আব্দুল মালেকের ছেলে।

এ ঘটনার জের ধরে ওই এলাকার চারটি বাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। পরে স্থানীয় আব্দুর রশিদের লুট হওয়া চারটি গরু পাশের আব্দুল মালেকের বাড়ি থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানায়, ওই গ্রামের আমিন হোসেন গত বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) একই গ্রামের টিপুর ছেলে মুস্তাক হোসেনকে (১১) ফুসলিয়ে ফরিদপুরে নিয়ে যান। ওইদিন রাতে পরিবারের লোকজন মুস্তাককে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় গত শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) পাকা গ্রামে একটি সালিশ বসে। সে সময় হাফিজ ও বাতেনের লোকজনের মধ্যে বাকবিতাণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে সংঘর্ষ শুরু হলে ইমরান হোসেন ও জীবন আহত হন।

পরিবারের লোকজন তাদের উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। ইমরানের অবস্থার অবনতি হলে তাকে ফরিদপুর ও পরে ঢাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন আবস্থায় সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ইমরান মার যান।

এ ঘটনায় একই গ্রামের আব্দুল বাতেন, শফিউদ্দীন, আব্দুর রশিদ ও কামরুজ্জানের বাড়ি-ঘর ভাঙচুর করা হয়। ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, ‘খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।


আরো নিউজ