২৮ কেজি ঝরিয়ে যেভাবে ‘ফ্যাট থেকে ফিট’ হলেন পরিনীতি

ডেস্ক রিপোর্ট
দক্ষিণ বাংলা বুধবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
২৮ কেজি ঝরিয়ে যেভাবে ‘ফ্যাট থেকে ফিট’ হলেন পরিনীতি

পাঞ্জাব কন্যা পরিনীতি চোপড়া বলিউডের হার্টথ্রোব নায়িকা। তার অসামান্য অভিনয় ও মিষ্টি মুখের হাসি দিয়ে ভক্তদের মন জয় করেছেন। ফিটনেস নিয়ে প্রথমে সচেতন না থাকলেও বডি শেমিং সহ্য করতে না পেরে নায়িকা ৮৬ থেকে ৬৯ কেজিতে এসেছেন। বি-টাউনকে অবাক করে দিয়ে ২৮ কেজি ওজন ঝরিয়ে ফ্যাট থেকে ফিট বনে গেছেন পরিনীতি চোপড়া।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে ও সাক্ষাৎকারে পরিনীতি তার ওজন কমানোর কৌশল সম্পর্কে জানিয়েছেন। টিপস দিয়েছেন তার ভক্তদের। বরাবরই খাদ্যপ্রেমী ছিলেন এ নায়িকা।

ফুড লাভার হওয়া স্বত্ত্বেও কঠোর ডায়েট মেইনটেইন করতে হয়েছে তাকে। তিনি বলেন, ‘আমি নিজের যত্ন নিচ্ছি এবং আরও ওজন কমাচ্ছি, কারণ নিজেকে আমি মেদহীন দেখতে চাই।’

মোটা হওয়ার কারণে পরিনীতি বলিউডে অভিনয় শুরু পর থেকে বেশ ভোগান্তি সহ্য করেছেন। কারণ তিনি অসুস্থ থাকতেন। সেইসঙ্গে অনেক ধরনের স্টাইলিশ পোশাকও পরতে পারতেন না। বিশেষ করে স্লিভলেস পোশাক পরতে তার বেশ অস্বস্তিবোধ হত।

এরপর নিজেকে ফিট হতে প্রস্তুত হয়ে গেলেন পরিনীতি। তিনি বলেন, ‘আমি নিজের প্রতি কঠোর না হলে ইন্ডাস্ট্রি থেকে আমাকে হয়তো চলেই যেতে হত। কারণ বলিউড ইন্ডাস্ট্রি মানেই সুন্দরের পূজারি।’

‘অভিনয়ের পাশাপাশি সুন্দর ফিটনেস ও চেহারা ধরে রাখা জরুরি এ স্থানে। পর্দায় ভালো দেখাতে ওজন কমানো ছাড়া আর কোনো বিকল্পই ছিল না আমার।’

পরিনীতি শৈশব থেকেই হেলদি ছিলেন। তবে চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশের পর ওজন নিয়ে অনেক নেতিবাচক মন্তব্য শুনতে হয়েছে তাকে। শরীরচর্চায় অনাগ্রহ থাকলেও নিয়ীমত অনুশীলন করতে হয়েছে। কঠোরভাবে ডায়েট ও শরীরচর্চা করে পরিনীতি সবার চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন।

‘৩৮ সাইজের জিন্স পরতাম আমি, এখন ৩০ ইঞ্চি পরি। এটি আমার বড় প্রাপ্তি’ বলে জানান পরিনীতি। কঠোর নিয়মনীতি মানার আগে, এ নায়িকা নিজের সঙ্গে অঙ্গিকারবদ্ধ হন কয়েকটি বিষয়ে-

১. জগিংয়ের মাধ্যমে দিন শুরু করা
২. ধ্যান বা মেডিটেশন
৩. এক ঘণ্টা যোগব্যায়াম
৪. সাঁতার বা ঘোড়ায় চড়া
৫. ট্রেডমিলে হাঁটা বা দৌঁড়ানো
৬. নাচের অনুশীলন
৭. কার্ডিও এবং নিয়মিত অনুশীলন

পরিনীতির বিপাকক্রিয়া অনুন্নত থাকায় খুব সহজেই তার ওজন বেড়ে যায়। আমাদের বেশিরভাগের মতো, তিনিও পিৎজা এবং পাস্তা খেতে পছন্দ করেন।

এ বিষয়ে নায়িকা বলেন, ‘আমি পিৎজা ছেড়ে দিয়েছি! এটি ছিল আমার প্রথম ভালবাসা।’ স্বপ্ন পূরণে এবং ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের জায়গা করে নিতে পরিনীতিকে পিৎজা, বার্গার এবং অন্যান্য ফাস্টফুড ছেড়ে দিতে হয়েছে।

পরিনীতি এখন যে ডায়েট মেনে চলেন-

ব্রেকফাস্ট: দুধ এক গ্লাস, মাখন সঙ্গে রুটি, দুটি ডিমের সাদা অংশ, ফলের রস।

মধ্যাহ্নভোজন: ডাল ও রুটি, বাদামি চাল, সবুজ সালাদ এবং সবুজ শাকসবজি।

রাতের খাবার: এক গ্লাস দুধ বা চকোলেট শেক সহ সাধারণ খাবার।

* তিনি বিছানায় যাওয়ার দুই ঘণ্টা আগে তার রাতের খাবার শেষ করেন।

এভাবেই পরিনীতি ফ্যাট থেকে ফিটে পরিণত হয়েছেন। বর্তমানে ওজন কমালেও, তা নিয়ন্ত্রণে রাখতে নিয়মিত জিমে গিয়ে ২-৩ ঘণ্টা শরীরচর্চা করেন পরিনীতি। সেইসঙ্গে ডায়েটও করছেন সময় মেনেই।


আরো নিউজ